অগ্নিবীণা কবিতা

প্রলয়োল্লাস

তোরা সব জয়ধ্বনি কর!
তোরা সব জয়ধ্বনি কর!
ওঐ নূতনের কেতন ওড়ে কাল্-বোশেখীর ঝড় !
তোরা সব  জয়ধ্বনি কর !
তোরা সব জয়ধ্বনি কর !
আসছে এবার অনাগত প্রলয়-নেশার নৃত্য-পাগল,
সিন্ধু-পারের সিংহ-দ্বারে ধমক হেনে ভাঙল আগল !
মৃত্যু-গহন অন্ধকূপে
মহাকালের চণ্ড-রূপে—
            ধূম্র-ধূপে
বজ্র-শিখার মশাল জ্বেলে আসছে ভয়ঙ্কর !
ওরে ওঐ
হাসছে ভয়ঙ্কর !
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর !
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর!
ঝামর তাহার কেশের দোলার ঝাপটা মেরে গগন দুলায়,
সর্ব্বনাশী জ্বালা-মুখী ধূমকেতু তার চামর ঢুলায় !
বিশ্বপাতার বক্ষ-কোলে
রক্ত তাহার কৃপাণ ঝোলে
            দোদুল দোলে !
অট্টরোলের হট্টোগোলে স্তব্ধ চরাচর—
ওরে ওঐ
স্তব্ধ চরাচর !
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর !
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর !
দ্বাদশ-রবির বহ্নি-জ্বালা ভয়াল তাহার নয়ন-কটায়,
দিগন্তরের কাঁদন লুটায় পিঙ্গ তার ত্রস্ত জটায় !
বিন্দু তাহার নয়ন-জলে
সপ্ত মহা-সিন্ধু দোলে
            কপোল-তলে !
বিশ্ব-মায়ের আসন তারি বিপুল বাহুর ‘পর—
হাঁকে ওঐ
“জয় প্রলয়ঙ্কর !”
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর !
তোরা সব
জয়ধ্বনি কর !

Leave a Comment